Breaking News

উচ্চতর গ্রেডে বেতন কমায় গভীর হতাশায় নিমজ্জিত মাদ্রাসা শিক্ষক ও কর্মচারীরা

উচ্চতর গ্রেডে বেতন আগের চেয়ে বৃদ্ধি পাবে এটাই স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু বিস্ময়কর হলেও সত্য যে, এমপিওভুক্ত মাদ্রাসার শিক্ষক কর্মচারীরা টাইম স্কেল প্রাপ্ত হলে বেতন বৃদ্ধির পরিবর্তে পূর্বে প্রাপ্ত বেতনের চেয়ে কমে যায়। বিষয়টি নিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষক কর্মচারীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে এবং তারা গভীর হতাশায় নিমজ্জিত।
সরকারি চাকরিজীবীদের মত বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীরাও বাৎসরিক ৫% হারে ইনক্রিমেন্ট পেয়ে থাকেন। ইতিমধ্যে অনেক শিক্ষক কর্মচারীরা চারটি ইনক্রিমেন্ট পেয়ে তারা যে কোডে বেতন পান তার পরবর্তী কোডকেও অতিক্রম করেছেন। অর্থাৎ তাদের বর্তমান আহরিত বেতন, পরবর্তী ধাপের বেতনের চেয়েও বেশি হয়ে গেছে। বর্তমানে কোনো শিক্ষক কর্মচারী যদি টাইম স্কেল বা উচ্চতর গ্রেড নেন তাহলে ঐ গ্রেড অনুযায়ী বেতন নির্ধারণ করলে তার বেতন আগের চেয়ে কমে যায়। এ ক্ষেত্রে স্কুল কলেজের নীতিমালায় স্পষ্ট বলা আছে, টাইম স্কেল/উচ্চতর গ্রেডে বেতন কখনো আহরিত বেতনের চেয়ে কম হবে না। বরং আহরিত বেতনের পরবর্তী ধাপ যেখানে হবে সেখানে গিয়ে তার বেতন নির্ধারিত (Fixation) হবে এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এই নিয়মে বেতন নির্ধারণ করে থাকে।
গত জুলাই মাসের এমপিওতে টাইম স্কেল নেয়া শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন কমে যাওয়ায় এর প্রতিবাদে গত মাসের ১০ তারিখ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন পালন করে ।ইনক্রিমেন্ট বঞ্চিত শিক্ষক কর্মচারীর নেতারা অধিদপ্তরে যোগাযোগ করলে এ বিষয়ে কোন সদুত্তর পাননি। তারা আশা করেছিল পরবর্তী মাসের এমপিওতে হয়তো ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু আগষ্ট মাসের এমপিও প্রকাশিত হলে দেখা যায় তাদের বৈষম্য আরো চরম আকার ধারণ করছে। অধিকন্তু যারা নতুন করে টাইম স্কেল নিয়েছেন তাদের বেতনও পূর্বের মত কমে গেছে।বিষয়টি নিয়ে চরম ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন মাদ্রাসার শিক্ষক কর্মচারীরা। তারা দ্রুত মাদ্রাসার নীতিমালা সংশোধনের দাবি জানিয়ে বলেছেন মাধ্যমিক উচ্চ
শিক্ষা অধিদপ্তরের ন্যায় মাদ্রাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন যেনো Fixation করা হয়।
মাদরাসায় কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ও ইনক্রিমেন্টে যে বৈষম্য তৈরি হয়েছে তা অতিসত্বর নিরসন করে কর্তিত ইনক্রিমেন্টের বকেয়া সহ মাদ্রাসার জুলাই ও আগস্ট ২০২২ মাসের এমপিও সংশোধন করে সেপ্টেম্বর ২০২২ মাসেই প্রকাশ করে মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের এ অনাকাঙ্খিত হতাশা মূক্ত করা ও তাদের ন্যায্য প্রাপ্যতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সুদৃষ্টি সহ আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

মো. মনিরুল ইসলাম
সদস্য সচিব
কেন্দ্রীয় কমিটি,
ইনক্রিমেন্ট বঞ্চিত সম্মিলিত মাদরাসা শিক্ষক কর্মচারী সমাজ।
০১৮৬২৪৪৫৪০১.

About Darpan News24

Check Also

হোমনায় সাবেক ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে শিশু ধর্ষণের চেষ্ঠার অভিযোগ, গ্রেফতার -১

হোমনা( কুমিল্লা) প্রতিনিধি :কুমিল্লার হোমনায় ১১ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সাবেক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.