Breaking News

হোমনায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স !

আব্দুল হক সরকার
কুমিল্লা-২ (হোমনা- মেঘনা) আসনের নব নির্বাচিত সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনাকে স্বাগত জানিয়েছেন সাধারণ জনগন। তিনি নির্বাচনের আগে বিভিন্ন জনসভায় এ ধরনের আশ্বাসও দিয়েছিলেন। তাঁর এ আশ্বাস এক ধরনের স্বীকৃতিও বটে। শুধু হোমনা বা মেঘনা উপজেলায় নয় সারা বাংলাদেশের বিদ্যমান নানাবিধ সমস্যার মধ্যে একটি অন্যতম সমস্যা হচ্ছে দুর্নীতি।জনগন এ ধরনের আশ্বাসে বিশ্বাস রাখতে চায়। এটা হবে সংসদ সদস্যের জন্য একটা অন্যতম প্রধান কাজ ও বড় চ্যালেন্স। কেন না যে সমাজে দুর্নীতি একটা সর্বগ্রাসী রূপ ধারণ করেছে, সেখানে’দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স শব্দটি শোনতে শ্রুতিমধুর বটে, কিন্তু দেখার বিষয় বাস্তবে কতটা ঘটে।

প্রসঙ্গত ১৯৭৩ সালের পর ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেলিমা আহমাদ মেরী নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হন। বিগত ৫ বছর এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে যে কাজ করেছেন। তার দায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক অস্কীকার করতে পারবেন না। দ্বাদশ নির্বাচনেও কিন্ত তিনিই দলীয় মনোনয়নে নৌকার প্রার্থী ছিলেন। যদিও নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যক্ষ আবদুল মজিদ নির্বাচিত হন।
দলীয় সরকারের আমলে তিনি কতটুকু পারবেন তা সময়েই বলদিবে। বিগত পাঁচ বছরে যে অনিয়ম ও দুর্নীতি হয়েছে। তার শ্বতপত্র প্রকাশ করে তা বন্ধে কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহন করা উচিৎ ।

বলা হয়ে থাকে, দুর্নীতি হচ্ছে একটা স্নোবলের মতো, এটা যখন চলতে থাকে তখন এটার যাত্রা বাড়তেই থাকে’।
আমাদের সমাজে দুর্নীতি রীতিমত একটা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ ধারন করেছে।

আপনি যে অফিসে যাবেন সেই অফিসেই খরচের নামে অতিরিক্ত অর্থ দাবী করার সংস্কৃতি চালু রয়েছে। ডাক্তার রোগীকে সেবাদেয়ার নামে অতিরিক্ত ফায়দা নিচ্ছে,শিক্ষক তার ছাত্রের নিকট থেকে ফায়দা নিচ্ছে,রাজনীতিবীদ তার কর্মীদেরকে অনৈতিক কাজে উৎসাহ যোগাচ্ছে, যেখানে অযোগ্য জেনেও দলীয় লোকের হাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দ্বায়িত্ব দেয়া হয়,যে সমাজে ন্যায় নীতি পড়াস্ত, সুষ্ঠু বিচার ব্যবস্থায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে,যে সমাজে ইভটিজিং, মাদক,জুয়ায় সয়লাব, যে সমাজে নির্বাচন করতে কোটি কোটি টাকার প্রয়োজন হয়। সে সমাজ রাতারাতি
একজন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য এবং তাঁর নেতা কর্মী মিলে কতটা এ স্নোবল ভাঙ্গতে পারবেন সেটাই দেখার বিষয়!

আজকে সংসদ সদস্য যাদের দ্বারা সমাজ পরিবর্তন করতে চান তাদের সাথে জনগন পরিচিত। সামনে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে জনগনের চোখে দুলা দেয়ার মিশনে নেমেছেন কি না তা কিন্ত প্রশ্নবোধক চিহৃ থেকেই যায়।

তবে আশার কথা ইতো মধ্যে এমপি মহোদয়ের সদিইচ্ছার ম্যাসেজ বিভিন্ন দপ্তরে পৌঁছে দিতে নেতাকর্মীরা বিভিন্ন দপ্তরে সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন। সিএনজি স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজি বন্ধের ঘোষনা দিয়েছেন।
আজ ১৭ জানুয়ারী বুধবার ১২ টার দিকে উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিসে ‘শেরেস্তা ফি’র নামে দলিল গ্রহীতাদের কাছ থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার টাকার চাঁদা আদায় করা হতো -এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তা বন্ধ করার জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একেএম সিদ্দিকুর রহমান আবুলের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা সেই অফিসে উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার ওমর ফারুকের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় সেরেস্তা’র নামে চাঁদাবাজি বন্ধের উদ্যোগ নেন।
এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একেএম সিদ্দিকুর রহমান আবুল সাংবাদিকদের বলেন, ’আমরা শুনেছি এতোদিন সাবরেজিস্ট্রি অফিস সাধারণ মানুষকে ধোঁকা দিয়ে শেরেস্তা ফির নামে লাখ লাখ টাকা চাঁদা নিত। তা বন্ধ করতে নবনির্বাচিত এমপি অধ্যক্ষ আবদুল মজিদ স্যারের নির্দেশে সাব রেজিস্ট্রার সাহেবকে জানিয়েছি। যাতে শেরেস্তার নামে কোনো চাঁদা নেয়া যাবে না।’

এ ব্যাপারে উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার ওমর ফারুক বলেন,অতীতের কথা বলতে পারবো না। তবে এই অফিসের কেউ যদি সরকারি ফিসের বাইরে শেরেস্তা’ কিংবা অতিরিক্ত কোনো টাকা আদায় করেন, তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত অভিমত সত্যিকার ভাবে অনিয়মও দুর্নীতি বন্ধ করতে চাইলে ধীরে চল নীতি অবলম্বন করা উচিৎ। সন্ত্রাস, দুর্নীতি মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে চাইলে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এতে থানাকে দালাল মুক্ত করতে হবে, আইনকে নিজেস্বগতিতে চলতে দিতে হবে, ভূমি অফিস গুলোতে যাতে জনসাধারনের ভোগান্তি বা হয়রানি না হয় তা বন্ধ করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে রাজনীতির প্রভাবমুক্ত রাখতে হবে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোচিং বানিজ্য ও গাইড বই বানিজ্য বন্ধ করা সহ কমিটি গঠন ও নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে।

কিন্ত অভিযোগ উঠেছে নির্বাচনের পরপর বিভিন্ন স্থানে কিছু লোক ব্যক্তি আক্রোসে প্রতিপক্ষ কর্মসমর্থকদের মারধর,বাড়ি ঘরে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। এতে করে এলাকায় অরাজক পরিস্থিথির সৃষ্টি হয়েছে।

শুধু তাই নয় কেহ কেহ ড্রেজারের নদী খননের বালু বিক্রির দ্বায়িত্ব পাইতে তদবির শুরু করেছে। কেহ কেহ ওমরাবাদ,জয়পুর এলাকায় নদী খননের বালু বিক্রির দ্বায়িত্ব বুঝে নিয়ে নিয়েছেন। কয়েক দিন পর বাকি সেক্টরে এমনটি হবে না তা নিশ্চিয়তা বিধান করতে হবে।

About Darpan News24

Check Also

কুমিল্লায় মুফতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী জেলার শ্রেষ্ঠ ইমাম নির্বাচিত!

নিজস্ব প্রতিবেদককুমিল্লা জেলার হোমনা উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর মধ্যপাড়া সাহেব বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *